শিরোনাম

ছাত্রী হেনস্তার বিচারের দাবিতে উত্তাল চবি


বগুড়া ডেস্ক : নিরাপদ ক্যাম্পাস ও ছাত্রী হেনস্তার বিচার দাবিতে বৃহস্পতিবার (২১ জুলাই) বেলা ১১টার দিকে ক্লাস বর্জন করে বিক্ষোভ মিছিল করেছেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) শিক্ষার্থীরা। বিশ্ববিদ্যালয়ের রসায়ন বিভাগের শতাধিক শিক্ষার্থী প্রশাসনিক ভবনের সামনে র‌্যালি ও মানববন্ধন করছেন। বৃহস্পতিবার (২১ জুলাই) বেলা ১১টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজ্ঞান অনুষদের সামনে রসায়ন বিভাগের শিক্ষার্থীরা ক্লাস বর্জন করে মানববন্ধন করেন। পরে বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষার্থীরা জড়ো হয়ে প্রশাসনিক ভবনের সামনে দ্বিতীয় দফা মানববন্ধন করেন। এরপর শহীদ মিনার প্রাঙ্গণে প্রগতিশীল ছাত্র জোট তৃতীয় দফা মানববন্ধন করে। সর্বশেষ এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত শহীদ মিনার প্রাঙ্গণে তৃতীয় দফা মানববন্ধন চলছে।

মানববন্ধন শিক্ষার্থীরা বিভিন্ন স্লোগান সংবলিত প্ল্যাকার্ড প্রদর্শন করেন। প্ল্যাকার্ডে শিক্ষার্থীরা লিখেন, ‘ভিসি যেখানে নারী, সেখানে অনিরাপদ কেন আমি?, সুবোধ তুই পালিয়ে যা তোর ভাগ্যে নিরাপত্তা নাই, নিরাপদ ক্যাম্পাস চাই, নাম অবশ্যই প্রশাসনের জানা, তবে মামলা কেন অজ্ঞাতনামা।’

এ সময় শাখা ছাত্র ফন্টের সদস্য শাহানাজ মুন্নি বলেন, ‘আমরা যে একুশ একর নিয়ে গর্ব করি সে একুশ শ একরের গর্ব আজ কোথায় গেল? আমাদের গর্বের একুশ শ একরে যদি প্রশাসন আমাদের নিরাপত্তা বিধান করতে না পারে তাহলে এই একুশ শ একর নিয়ে গর্ব আমরা কেন করব?’

রসায়ন বিভাগের ছাত্রী সাজিয়া আহমেদ বলেন, ‘যে ঘটনার বিচার চার ঘণ্টার মধ্যে হওয়ার কথা ছিল সে ঘটনার চার দিন পেরিয়ে গেলেও প্রশাসন কিছু করতে পারেননি। ক্যাম্পাসকে আমরা আমাদের বাড়ির মতো মনে করি। এখানে প্রশাসন আমাদের অভিভাবক। আমাদের বাড়িতে আমাদের আমাদের অভিভাবকরাই আমাদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে পারছে না। এ রকম অভিভাবক থেকেই বা কী লাভ?’ এর আগে ক্যাম্পাসে নিরাপত্তা নিশ্চিতে চার দফা দাবিতে বুধবার (২০ জুলাই) দিবাগত রাত সাড়ে ৯টা থেকে সাড়ে ১২টা পর্যন্ত উপাচার্যের বাসভবনের সামনে বিক্ষোভ করেন ছাত্রীরা। এ সময় চার দফা দাবি মেনে নেওয়ার শর্তে আন্দোলন থেকে সরে আসেন তারা।

গত রোববার (১৭ জুলাই) রাতে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রীতিলতা হল সংলগ্ন এলাকায় ৫ জন দুর্বৃত্তের হাতে শারীরিক হেনস্তার শিকার হন এক ছাত্রী। ওই সময় সঙ্গে থাকা তার বন্ধুকেও মারধর করা হয়। ছিনিয়ে নেওয়া হয় মোবাইল ফোন। পরে এ বিষয়ে ভুক্তভোগী ছাত্রী প্রক্টর বরাবর অভিযোগ দিলে ৫ সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। যৌন নিপীড়নের এ ঘটনার জেরে ছাত্রীদের মাঝে ক্ষোভ ছড়িয়ে পড়ে। এরই মধ্যে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ ছাত্রীদের হলে প্রবেশে র সময়সীমা বেঁধে দেয়। এতে শিক্ষার্থীদের মাঝে নতুন করে ক্ষোভ দেখা দেয়।


Check Also

এসএসসি শুরু হবে ১৫ সেপ্টেম্বর, এইচএসসি নভেম্বরে

বগুড়া ডেস্ক : চলতি বছরে এসএসসি ও সমমান পরীক্ষা ১৫ সেপ্টেম্বর থেকে শুরু হবে বলে …

Leave a Reply

Your email address will not be published.