শিরোনাম

নওগাঁয় অভ্যন্তরীণ রুটে বাস চলাচল বন্ধে দুর্ভোগে যাত্রীরা


নওগাঁ জেলা প্রতিনিধি : বাস ও অটোরিকশা শ্রমিকদের সংঘর্ষের জের ধরে পূর্ব ঘোষণা ছাড়াই বন্ধ রাখা হয়েছে নওগাঁ থেকে অভ্যন্তরীণ ও আন্ত:জেলা রুটে বাস চলাচল। বুধবার (১৪ সেপ্টেম্বর) ভোর ৬টার দিক থেকে বাস চলাচল বন্ধের ডাক দেয় জেলা মোটর শ্রমিক ইউনিয়ন এবং জেলা সড়ক পরিবহন মালিক গ্রুপ। এতে ভোগান্তিতে পড়েছেন যাত্রীরা।

এ বিষয়ে নওগাঁ জেলা মোটর শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক এস এম মতিউজ্জামান বলেন, গতকাল মঙ্গলবার বিকাল ৫টার দিকে নওগাঁ বাস টার্মিনাল এলাকায় কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে অটোরিকশা ও ইজিবাইকের শ্রমিকরা কয়েকজন মোটর শ্রমিককে মারধর করে। এ ঘটনার প্রতিবাদে জড়িতদের গ্রেফতারের দাবিতে বাস মালিক ও মোটর শ্রমিক ইউনিয়নের সিদ্ধান্তে আজ সকাল ৬টা থেকে অনির্দিষ্টকালের জন্য জেলার অভ্যন্তরীণ ও আন্তঃজেলা রুটে বাস চলাচল বন্ধ করা হয়েছে।

এ ব্যাপারে নওগাঁ জেলা সড়ক পরিবহন মালিক গ্রুপের সাধারণ সম্পাদক মোস্তফা কালিমী বাবুল বলেন, বিষয়টি নিয়ে পুলিশ প্রশাসনের লোকজন উভয় পক্ষের সঙ্গে বসেছেন। আলোচনার মাধ্যমে সমস্যার সমাধান হলে আজকেই বাস চলাচল সচল হতে পারে। তবে প্রধান দাবি হচ্ছে, জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা না নেওয়া পর্যন্ত বাস চলাচল বন্ধ থাকবে।

এ প্রসঙ্গে জেলা অটোরিকশা মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক দুলাল মণ্ডল বলেন, গতকাল বিকালে বাসস্ট্যান্ড এলাকায় রাস্তার পাশে কয়েকটি অটোরিকশা দাঁড়িয়ে ছিল। এ সময় বাস পরিবহন সংগঠনের শ্রমিকরা সেখান থেকে অটোরিকশা সরিয়ে নিতে বলে। এ নিয়ে উভয় পক্ষের মধ্যে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। সেখানে আমাদের শ্রমিকরাও আহত হয়েছেন। এটা খুবই সামান্য ঘটনা। এটা নিয়ে বাস চলাচল বন্ধ করে সাধারণ মানুষকে ভোগান্তিতে ফেলা ঠিক হয়নি। প্রশাসনের কর্তারা উভয় পক্ষকে নিয়ে বসেছেন। আশা করছি, আজকের মধ্যেই সমস্যার সমাধান হবে।

এদিকে হঠাৎ করে বাস চলাচল বন্ধ হওয়ায় আন্তঃজেলা বাস টার্মিনালে যাত্রীদের দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা গেছে। দুর্ভোগে পড়েছেন যাত্রীরা।

গৃহবধূ শারমিন আকতার সাপাহার উপজেলা থেকে ছোট ছেলেকে নিয়ে বগুড়া গেছিলেন বেড়াতে। আজ সকালে বাড়ি যাওয়ার জন্য বগুড়া থেকে বাসস্ট্যান্ডে এসে দেখে বাস বন্ধ। শারমিন বলেন, এখন কিভাবে বাড়ি যাবো বুঝতেছি না। একটু কিছু হলেই বাস-চলাচল বন্ধ করে দেওয়া হয়। এটা ঠিক না। বাস-চলাচল স্বাভাবিক রেখে তারা নিজেরা বসে এটা ঠিক করতে পারে। অযথা যাত্রীদের কষ্ট দেওয়া হয়।

রাজশাহী যাওয়ার জন্য অপেক্ষা করা হাফিজুর রহমান বলেন, আমার এক আত্মীয় রাজশাহী মেডিক্যালে ভর্তি, তাকে দেখতে যাওয়ার কথা আমাদের। এখানে এসে দেখি কোনো বাস রাজশাহী যাবে না। কীভাবে যাব বুঝতে পারছি না।

আরেক যাত্রী লিপিকা সরকার বলেন, ঢাকা থেকে ট্রেনে এসেছি, সাপাহারে যাব। নওগাঁ বাসস্ট্যান্ডে এসে দেখি বাস বন্ধ। এখন সিএনজিতে যেতে হবে। কিন্তু সিএনজিতে যেতে বাড়তি ভাড়া দিতে হবে।


Check Also

কুড়িগ্রামে বেড়েছে শীত, হেডলাইট জ্বালিয়ে চলছে যানবাহন

কুড়িগ্রাম জেলা প্রতিনিধি : উত্তরের সীমান্তঘেঁষা জেলা কুড়িগ্রামে শীত বেড়েছে। হিমালয়ের নিকটবর্তী হওয়ায় গ্রামাঞ্চলসহ শহরের …

Leave a Reply

Your email address will not be published.