শিরোনাম

প্রস্রাবে জ্বালাপোড়া কমাতে ঘরোয়াভাবে যা করবেন


বগুড়া ডেস্ক : প্রস্রাব আমাদের স্বাভাবিক শারীরবৃত্তীয় প্রক্রিয়া। কিডনি থেকে পানির মাধ্যমে প্রস্রাব তৈরি হয়। প্রস্রাবের মাধ্যমে আমাদের শরীরের দূষিত পদার্থ বের হয়ে যায়। এতে কোনো কারণে ব্যাঘাত ঘটলে শরীরের পুরো কার্যকলাপে প্রভাব পড়ে। অনেকের প্রস্রাবের সময় জ্বালাপোড়া হয়। প্রথমদিকে গুরুত্ব না দেওয়ায় পরবর্তীতে এই সমস্যা অনেক বাড়ে। ব্যাকটেরিয়া বা ভাইরাসের কারণে প্রস্রাবের পুরো প্রক্রিয়াতে সমস্যা তৈরি হয়। ফলে সৃষ্টি হয় জ্বালা, যন্ত্রণা। এই সমস্যা পুরুষের চেয়ে নারীদের ক্ষেত্রে বেশি দেখা যায়। তবে সতর্ক থাকতে হবে উভয়কেই। তাই প্রস্রাবে জ্বালাপোড়া দেখা দিলে দ্রুত ঘরোয়া উপায়ে সমাধান করতে হবে।

পানি পান করুন : গবেষণায় দেখা গেছে, নিয়ম মেনে পানি পান না করলে, প্রস্রাবে জ্বালাপোড়া তৈরি হয়। অনেকের অভ্যাস আছে পানি কম পান করার। তাদের এই সমস্যা হতে পারে। পানি কম পান করলে প্রস্রাবও কম হয় বা হতে চায় না। তখন মূত্রনালিতে জীবাণু বংশবিস্তারের সময় পেয়ে যায়। এদিকে পর্যাপ্ত পানি পান করলে প্রস্রাবের সঙ্গে জীবাণুও বের হয়ে যায়। তাই দিনে দুই-তিন লিটার পানি পান করুন।

লেবুপানি পান করুন : শরীরের জন্য লেবুর রস মিশ্রিত পানি পান করা ভালো। প্রস্রাবের জ্বালাপোড়ার সমস্যায় লেবুপানি পান করলে অনেকটা উপকার পাবেন। প্রতিদিন সকালে উঠে হালকা গরম পানিতে লেবুর রস মিশিয়ে নিন। গ্লাসে এক চা চামচ মিশিয়ে নিলেই যথেষ্ট। এভাবে কয়েক দিন পান করলেই সমস্যা কমে আসবে। এর কারণ লেবুর রসে আছে ভিটামিন সি। এটি সব ধরনের সংক্রমণ প্রতিরোধে কাজ করে। সঙ্গে এটি অ্যান্টিঅক্সিডেন্টেও ভরা।

ডাবের পানি পান করুন : ডাবের পানি নানাভাবে আমাদের শরীরের উপকার করে। বিশেষ করে প্রস্রাবে জ্বালাপোড়া দূর করতে এটি খুব ভালো কাজ করে। ডাবের পানি পান করলে তার মাধ্যমে শরীরে অনেকটা ইলেক্ট্রোলাইট প্রবেশ করে। আমাদের শরীর ঠান্ডা রাখে এই উপাদান। সঙ্গে রাখে সুস্থও। তাই নিয়মিত ডাবের পানি পান করুন। তবে ঘরোয়া উপায় মেনে চলার পরও, যদি প্রস্রাবে জ্বালাপোড়া না কমলে দ্রুত চিকিৎসকের সঙ্গে যোগাযোগ করুন।


Check Also

ঘুমের মধ্যে শ্বাস বন্ধ রোগের লক্ষণ ও করণীয়

বগুড়া ডেস্ক : ঘুমের মাঝে শ্বাস-প্রশ্বাস বন্ধ হয়ে যাওয়ার মতো একটি জটিল সমস্যা হলো স্লিপ …

Leave a Reply

Your email address will not be published.