শিরোনাম

সাঁতার কাটতে গিয়ে সন্তান প্রসব


বগুড়া ডেস্ক : সাঁতার কাটতে এসেছিলেন এক গর্ভবতী নারী। এ সময় সুইমিংপুলেই তার প্রসববেদনা শুরু হয়। তাৎক্ষণিকভাবে তাকে সাহায্য করেন ১৮ বছর বয়সী লাইফগার্ড নাটালি লুকাস। সুইমিংপুলের পাশেই সন্তান জন্ম দেন টেসা রাইডার নামের ওই নারী। গত ২৪ জুলাই যুক্তরাষ্ট্রের কলোরাডোর লংমন্টের একটি ওয়াইএমসিএ সেন্টারে এই ঘটনা ঘটে। এদিন সুইমিংপুলের লাইফগার্ডের দায়িত্বে ছিলেন নাটালি। তবে পানিতে থাকার কারণে প্রসববেদনা অনেকটা কম হয়েছে বলে জানান ২৯ বছর বয়সী টেসা। এদিন তার স্বামী ম্যাথিউ জোনসও তার সঙ্গে সাঁতার কাটছিলেন।

ওয়াশিংটন পোস্টকে টেসা বলেন, আমরা জানতাম যে আমাদের সন্তান আসছে। তবে তা যে এদিনই ঘটবে সেটি ভাবতে পারিনি। টেসা স্বীকার করেছেন যে, তিনি সাঁতার কাটতে যাওয়ার আগে কিছু লক্ষণ টের পেয়েছিলেন। তবে সেটি যে সন্তান প্রসবের তা তিনি বুঝতে পারেননি। পানিতে নামার সঙ্গে সঙ্গেই প্রসববেদনা শুরু হয়। স্বামী ম্যাথিউকে ডেকে দ্রুত সহযোগিতা করতে বলেন। এসময় সেখানে কর্মরত নাটালি দ্রুত টেসার কাছে দৌড়ে যান। সন্তান প্রসবের বিষয়টি দেখে নাটালি দ্রুত কাজ শুরু করেন। ক্লিনিক্যাল প্রশিক্ষণ ছাড়াই কাজে নেমে পড়েন নাটালি। শেষ পর্যন্ত তিনি সফল হন।

নাটালি বলেন, ‘আমি শান্ত ছিলাম এবং আমি আতঙ্কিত হইনি, কারণ এই কাজটি আমাকেই করতে হবে। এমন সময়ে আপনি সত্যিই দ্বিধা করতে পারবেন না বা অন্য কারও আসার জন্য অপেক্ষা করতে পারবেন না। আপনিই লাইফগার্ড; আপনিই জীবন রক্ষাকারী।’ ওই শিশুর নাম রাখা হয়েছে টবিন- টবি টমাস রাইডার। আর এমন দ্রুততার সাথে সাহায্য করার জন্য সবাই কাছে হিরো হয়ে গেছেন ১৮ বছরের তরুণী নাটালি।


Check Also

১০৭ বিয়ের পরও থেমে নেই কবিরাজ আবুবকর

বগুড়া ডেস্ক : চিকিৎসকের কাছে নারীরা যেতেন চিকিৎসা নেয়ার জন্য। কিন্তু প্রেসক্রিপশন দেয়ার পাশাপাশি তাদের …

Leave a Reply

Your email address will not be published.